Swami Vivekananda Scholarship: স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে আবেদন, কোন কোর্সে কত টাকা! রইল বিস্তারিত

শেয়ার করুন Swami Vivekananda Scholarship: শিক্ষা ব্যক্তি ও সমাজের ভবিষ্যৎ গঠনে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। শিক্ষাই ক্ষমতায়নের মূল চাবিকাঠি, এবং স্কলারশিপ যোগ্য শিক্ষার্থীদের জন্য ...

Swami Vivekaknanda Scholarship Application Form Fill Amount 2023-2024
শেষ আপডেট:

Swami Vivekananda Scholarship: শিক্ষা ব্যক্তি ও সমাজের ভবিষ্যৎ গঠনে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। শিক্ষাই ক্ষমতায়নের মূল চাবিকাঠি, এবং স্কলারশিপ যোগ্য শিক্ষার্থীদের জন্য সেই শিক্ষাকে আরও সহজলভ্য করে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

আজকের দিনেও এমন অনেক শিক্ষার্থী আছে যা অর্থের তাগিদে দু বেলা ঠিক মতো খেতে পর্যন্ত পারে না, সেই সব শিক্ষার্থীদের কাছে পড়াশোনার খরচ যেন একটা বোঝা হয়ে ওঠে। আর এই জন্যই রাজ্য সরকার দ্বারা প্রতিবছর বিভিন্ন স্কলারশিপ পরিচালনা করা হয়। তাদের মধ্যে সব থেকে উল্লেখযোগ্য স্কলারশিপ হলো স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ (Swami Vivekananda Scholarship)।

শ্রদ্ধেয় ভারতীয় সন্ন্যাসী এবং অন্যতম প্রভাবশালী নেতা স্বামী বিবেকানন্দের নামানুসারে এই স্কলারশিপের নামকরণ করা হয়েছে। অনেকের কাছে আবার এই স্কলারশিপ কে বিকাশ ভবন স্কলারশিপ নামেও পরিচিত।

আরও পড়ুন:

ইতিমধ্যেই চলতি বছরের শিক্ষাবর্ষের জন্য এই স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে আবেদন গ্রহন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কিভাবে স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে আবেদন করতে হবে, রিন্যুয়াল কিভাবে করতে হবে, কত টাকা পাওয়া যায়, আবেদনের জন্য যোগ্যতা কি লাগবে, এই বছরে আবেদনের শেষ তারিখ কত ইত্যাদি যাবতীয় তথ্য আজকের প্রতিবেদনে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হলো।

স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ 
Scholarship NameSwami Vivekananda Scholarship
Launched byGovernment of West Bengal
Starting Year2016
Amount of Money1000-8000 Monthly
Objective of Scholarship Financial Support
CategoryWest Bengal Government Schemes
Application ProcedurOnline
Official Website@svmcm.wbhed.gov.in
স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের উদ্দেশ্য
  • অর্থনৈতিকভাবে সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষা গ্রহণে সহায়তা করা।
  • আর্থিক প্রতিবন্ধকতা দূর করে মেধাবী ও যোগ্য শিক্ষার্থীদের জন্য সমান সুযোগ প্রদান করা।
  • নিম্নবিত্ত ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে আসা শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার জন্য আর্থিকে সাহায্য প্রদান করে শিক্ষার প্রতি আগ্রহ জাগানো।
  • শিক্ষার মাধ্যমে দারিদ্র্যের চক্র ভেঙ্গে নিম্নবিত্ত পরিবার ও সম্প্রদায়কে উন্নীত করা।
  • যুবসমাজকে দক্ষ, শিক্ষিত ও দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা।
  • স্বামী বিবেকানন্দের শিক্ষা, জ্ঞান এবং করুণার আদর্শ প্রচার করে তার উত্তরাধিকারকে সম্মান করা।
স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে প্রাপ্ত টাকার পরিমাণ

এই স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ (Swami Vivekananda Scholarship) উচ্চ মাধ্যমিক স্তর শুরু করে একদম Ph.D অর্থাৎ গবেষণা স্তর পর্যন্ত অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন পরিমাণে আর্থিক সাহায্য প্রদান করা হয়।

একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত শিক্ষার্থীদের জন্য এই স্কলারশিপে মাসিক 1000 টাকা অর্থাৎ বার্ষিক 12,000 টাকা দেওয়া হয়।

স্নাতক অর্থাৎ গ্রাজুয়েশন স্তরে পাঠরত শিক্ষার্থীদের প্রতিমাসে 1000 টাকা অর্থাৎ বার্ষিক 12,000 টাকা দেওয়া হয়।

ইঞ্জিনিয়ারিং বা মেডিকেল কোর্সের পড়ুয়াদের প্রতি মাসে 5000  টাকা আতিক সাহাজ্য দেওয়া হয়।

স্নাতকোত্তর অর্থাৎ পোস্ট গ্রাজুয়েশন পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের প্রতিমাসে 2000 টাকা করে দেওয়া হয়।

পলিটেকনিক কোর্সের  জন্য প্রতিমাসে 1500  টাকা দেওয়া হয়।

M.Phil এবং স্নাতকোত্তর ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে পাঠরত শিক্ষার্থীদের মাসিক 5,000  টাকা দেওয়া হয়।

PhD এর ক্ষেত্রে প্রতিমাসে সর্বোচ্চ 8000 টাকা দেওয়া হয়।

স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে আবেদনের যোগ্যতা

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ 

উচ্চমাধ্যমিক স্তর : উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে আবেদনের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীকে অবশ্যই মাধ্যমিক ও একাদশ শ্রেণীর পরীক্ষায় 60% নম্বর পেয়ে থাকতে হবে।

স্নাতকস্তর: স্নাতকস্তরে (অনার্স /নার্সিং /ইঞ্জিনিয়ারিং বা অন্যান্য) আবেদনের জন্য শিক্ষার্থীকে অবশ্যই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় 60% নম্বর পেতে হবে।

স্নাতকোত্তর স্তর: শিক্ষার্থীকে স্নাতক স্তরে নূন্যতম 53% নম্বর থাকতে হবে আবেদন করার জন্য।

পলিটেনিক বা ডিপ্লোমা কোর্স : ডিপ্লোমা (পলিটেনিক বা অন্যান্য ) কোর্সে আবেদনের জন্য শিক্ষার্থীকে মাধ্যমিকে 60% নম্বর পেয়ে থাকতে হবে।

কন্যাশ্রী আবেদনকারী শিক্ষার্থীর k3: k2 এর বৈধ ID থাকতে হবে এবং 43% নম্বর পেয়ে থাকতে হবে।

M. Phil/Phd: এক্ষত্রে কোনো নিদিষ্ট নম্বরের প্রয়োজন হয় না।

অন্যান্য যোগ্যতাঃ

আবেদনকারীকে অবশ্যই পচিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।

পরিবারের বার্ষিক আয় 2,50,00 টাকার কম হতে হবে।

পচিমবঙ্গ সরকার থেকে অন্য কোনো বৃত্তির জন্য আবেদন করে থাকলে, এই বৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপে আবেদন প্রক্রিয়া
  • স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ এ আবেদন করার জন্য প্রথমে এই স্কলারশিপের অনলাইন পোর্টাল svmcm.wbhed.gov.in এ প্রবেশ করতে হবে।
  • অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এসে রেজিস্টার অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • এরপরে স্কলারশিপ সংক্রান্ত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সামনে আসবে এগুলিকে ভালো করে পড়ে ‘Proceed for Registration‘ বটনে ক্লিক করতে হবে।
  • রেজিস্ট্রেশন ক্যাটেগরি থেকে নির্দিষ্ট কোর্স অনুযায়ী সঠিক Directorate বেছে নিয়ে, ‘Apply for Fresh Application‘ অপশনে ক্লিক করতে হবে।
  • তারপরে শিক্ষার্থীকে নিজের নাম, মোবাইল নং, ইমেল ইত্যাদি দিয়ে স্কলারশিপের জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।
  • রেজিস্ট্রেশনের সময় শিক্ষার্থীকে একটি নির্দিষ্ট পাসওয়ার্ড তৈরি করতে হবে, যেটা পরবর্তীকালে লগইন করার সময় কাজে লাগবে।
  • সফলভাবে রেজিস্ট্রেশনের পর, আবেদনকারী একটি ‘Application ID’ পাবে। যার সাহায্যে সে অনলাইন লগইন করতে পারবে। এই Application ID টি লিখে রাখতে হবে, পরবর্তী ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য।
  • আবেদনকারীকে Application ID এবং Password দিয়ে লগইন করতে হবে এবং Dashboard-এ ‘Edit Profile/Application‘ অপশনে ক্লিক করতে হবে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পুর্ণ করার জন্য।
  • এখন অনলাইন আবেদন ফর্মটি সঠিকভাবে সমস্ত তথ্য দিয়ে পূরণ করতে হবে এবং আবেদনকারীর স্ক্যান করা ছবি ও সই ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে।
  • এই সমস্ত ডকুমেন্ট PDF ফরম্যাটে আপলোড করে ‘Submit Application‘ অপশনে ক্লিক করতে হবে।
প্রয়োজনীয় নথিপত্র
  • শেষ পরীক্ষার মার্কশিট।
  • মাধ্যমিকের অ্যাডমিট কার্ড।
  • শেষ পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড।
  • ইনকাম সার্টিফিকেট।
  • আধার/রেশন/ভোটার কার্ড।
  • ব্যাংকের পাশ বই-এর প্রথম পৃষ্ঠার জেরক্স।
  • ভর্তি রসিদ।
স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ রিন্যুয়াল আবেদন পদ্ধতি

স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট-কাম মিনস স্কলারশিপের রিন্যুয়াল আবেদনের জন্য শিক্ষার্থীদের গত বছর অনলাইন আবেদনের সময় প্রাপ্ত Application ID ও Password দিয়ে www.svmcm.wbhed.gov.in ওয়েবসাইটে লগইন করতে হবে। এরপর উপরে উল্লেখিত ধাপগুলি অনুযায়ী রিন্যুয়াল আবেদন করতে হবে।

যে সমস্ত শিক্ষার্থীরা একাদশ, দ্বাদশ, গ্রাজুয়েশনের প্রথম বছরে অথবা পলিটেকনিকের প্রথম বছরে 60% নাম্বার পেয়েছে তারা এই স্কলারশিপ রিন্যুয়াল করার যোগ্য। পোস্টগ্রাজুয়েট কোর্সের জন্য সর্বনিম্ন 50% নাম্বার প্রথম বছর পেতে হবে, তবেই পরের বছরের জন্য রিন্যুয়াল আবেদন করা যাবে।

স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপের হেল্পলাইন

স্কলারশিপের অনলাইন আবেদনের সময় কোন সমস্যা হলে অথবা অন্যান্য কোনো জরুরী তথ্যের জন্য‌ স্কলারশিপের হেল্পলাইনে যোগাযোগ করতে পারেন।

Email: [email protected]

Toll Free No: 18001028014

  আমাদের হোয়াটস্যাপ চ্যানেল